সুকান্ত দাস এর কবিতা | মিহিন্দা



ম্যানিকুইন


আজ অন্যভুবনের দিন। অর্ধেক সাপ থেকে এখনও ছোবল বেরিয়ে আসে। সাপুড়ের হাতে বিন। সে হাতে অনেক পরজীবীও প্রজাপতির পাখনা।

আর ছিল কিছু দস্তাবেজ। পুড়ছে আকাশ জুড়ে। যেভাবে ধোঁয়াশার প্রমাণ থাকেনা।
আমি জেনে এসেছি অনেক সংগ্রামী দুঃস্বপ্নের পর দেখা মেলা রাতে নেমে আসা পরীদের। তার শরীরের ভাড়া করা ঘাতক নিঃশব্দে উঠে আসে মাথার পাশে। নিশ্চিত মাপজোক। জবাই খড়্গ নেমে এলে দুঃস্বপ্ন ভেবে আবার হাসিতে ভরে নিই মুখ। সুধাপাত্র বিতরণ করি।

তারপর একদিন জবনের সাথে দেখা। কেমন আছো হে দলদাস ? কোমল স্বরে কথা হয়। সে তার মুখোটা খুলে চওড়া হাসি দেয়। যেন এইমাত্র কন্যা সম্প্রদান করেছে। নির্ভার এতোটাই। আর কিছু গোপন থাকেনা। হাজারটা আজান মিলিয়ে যায়। সুর ওঠে ভৌগোলিকতা, গ্রহের আর্তির। জবন এবার খোলামেলা ঋণ স্বীকার করে। দেখিয়ে দেয় খানিকটা পথ।

মন্ত্রমুগ্ধতা থেকে পথ শুরু বিপন্নতার। হ্যারিকেনের চিমনিতে গোত্তা খাওয়ার সুখ পতঙ্গই জানে ! ভীড় হয়ে ওঠে অজস্র লোকপ্রান্তর, হাঁটাচলা, সামাজিকীকরণ ..
আমি জেনে গেছি আঘাতের প্রতিশব্দ কি। ক্লান্তি আসেনা। আরো অনেকটা জুড়ে ছবি আঁকা বাকী। সাদার মতো গোত্রহীন ঐশ্বর্যের।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন