মুহিন তপু এর কবিতা | মিহিন্দা



ঘোড়া দৌড়ায়,একলা,মনে



প্রায়ই ঘোড়াটির লাগাম ছিড়ে যায়।লাগামছাড়া ঘোড়া,দৌড়ায়, একলা,বনে।ক্লান্ত হয়ে ফিরে আসে মনিবের কাছে।মনিব লাগাম না পড়িয়েই তাকে যেতে বলে যেদিকে মন চায়। ঘোড়াটি আবার দৌড় দিয়ে বনের দিকে যায়।ঘোড়া দৌড়ায়,একলা,বনে ।ক্লান্ত হয়ে কিছুক্ষন দাঁড়িয়ে থাকে। চাবুকের কথা মনে পড়লে ফিরে আসে মনিবের কাছাকাছি পুনরায়।পিছন ফিরে তাকাতেই দেখে বনের পথ মনের পথে দাঁড়িয়ে আছে, সংশয়ে।পথের দ্বিধা আর ক্লান্তি নিয়ে ঘোড়াটি ঝিমায়।মনিব লাগাম লাগিয়ে চাবুকের ক'টি ঘা পিঠে বসিয়ে দিতেই কেটে যায় যেন সমস্থ দ্বিধা। চুপচাপ ঘোড়াশালে ঢুকে ঘুমিয়ে পড়ে।ঘুমের ভেতর ঘোড়াটি দৌড়ায়, একলা, মনে।



এক+আকার=একা(একাকার)


একের সাথে আকার এসে বসলে চা বানাই।দুই কাপ।এক কাপে চুমুক দেই।আরেক কাপের দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে।দুটো কাপ এক সাথে রাখি।ধোঁয়া উড়া দেখি, ধোঁয়া গুলো উড়ে উড়ে এক হতে দেখি।গরম কাপে হাত বুলাই, ঠান্ডা হতে দেখি।এক কাপের চা অন্য কাপে ঢালি।এক কাপের চা অন্য কাপে মিলতে দেখি।চুমুক দেই দুটো কাপেই।একের পর এক।খালি কাপ দুটো পাশাপাশি মেঝেতে রাখি।এক এর সাথে আকার জেঁকে বসে, বলে,উড়ে যাওয়া ধোঁয়ার মত আমরা মিলেমিশে আছি,রাত পোহাবার এখনো ঢের বাকি।চলো,যেখানে পড়েনি পা কারো,সেখানে কিছুদুর হেঁটে আসি।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন