সুরঞ্জিত বাড়ই এর কবিতা | মিহিন্দা




প্রাত্যহিক



ঝলমলে আলো নিয়ে পৃথিবী জাগে
তারপর সময় দৌড়ায়
মধ্যাকাশে সূর্য পোড়ায় বিস্তর মাঠ- ঘাট- নদী- খাল
ছায়ারাও থাকে বৃক্ষতলে
বটের পাতা নড়ে তিরতির
বাঁশঝারে ঘুঘু ডাকে কদাচিৎ
উদাস দুপুর
সেও জাগে মনের ভেতর

সুখের শরীর টানে ভাতঘুম, বৈকালে শিশুদের হুল্লোর
জাগে নতুন প্রাণ

আটপৌরে জীবনে নারীদের
গল্পের আসর
দু' দিনের ব্যবধানে বেড়ে যায় পেঁয়াজের দাম

এদিকে নেটে আসক্ত তরুণ সমাজ
করেনা থোরাই কেয়ার

টিভিতে করোনা আপডেট ঘন্টায় ঘন্টায়
মৃতদের দেশে উল্লাস বাড়ায়!



প্রাত্যহিক -২



গত রাত দশটায় বাবাকে দেখেছি স্বাভাবিক
কিছুটা কৌতূহল তাঁর স্বভাবজাত বটে!

চারদিকে কত খবর চাউর হয় আজকাল
কিছু সে মনে রাখে কিছু ভুলে যায়
লক ডাউন , কোয়ারেন্টাইন কেও কেও কপচায়

গত রাত দশটায় এ পাড়ায় ঢুকেছে
মৃতপ্রায় বেড়াল ছানা যেন
মুখ লুকানো অদ্ভূত কৌশল রপ্ত তার
অথচ লাশের মিছিল চলছে
কাতারে কাতার!

বাবাকে দেখেছি স্বাভাবিক
কিছুটা কৌতূহল তাঁর স্বভাবজাত বটে!
প্রখর রোদে দুপুর, থমথমে এ পাড়া
গলির মুখে অদ্ভুত ভয়সংগীত

গজারি বনে ঝুলে আছে পাতাঝরা দিন
বনফুল অথবা সবুজ কোয়ারেন্টাইনে
বেঁচে আছে কোকিল ডাকা বিকেল
মাঝে মাঝে ঝিঝি রব
অথচ কী শান্ত- নীরব পৃথিবী এখন

বাবাকে দেখেছি স্বাভাবিক
কিছুটা কৌতূহল তাঁর স্বভাবজাত বটে!
বাবা কী বুঝে গেছে !
"লক ডাউন" মানে এক অস্থিরতার নাম!



প্রাত্যহিক-৩



বছর তিনেক হয় শ্বাসকষ্টে ভুগছেন
আমাদের মা
বড় আটপৌরে জীবন তার

তিনি কী ভাবেন ! পৃথিবীময় এত অক্সিজেন তবু ফুসফুস পায়না কেন তারে!

ইন্ডিয়ান সিরিয়ালে আসক্ত আমাদের মা
সুখি পরিবারের গল্পে তার ভীষণ মনোযোগ
গল্পগুলো তারে ভেতরে ভেতরে কাঁদায় হাসায়
অথচ রোহিঙ্গা বিষয়ে তার কেমন ঔদাসিন্য!
ইয়েমেন যুদ্ধের ভয়াবহতা অজানা থেকে যায়

গতকাল তার চোখেমুখেও দেখেছি চিন্তার ছাপ
কপালে বলিরেখা বাড়িয়ে দিচ্ছে বয়স
এখন তিনিও জানেন মৃত্যুর মিছিলে প্রতিদিন
যোগ হচ্ছে কতশত প্রাণ!

শ্বাসকষ্টে ভোগা আমাদের মা
বড় আটপৌরে জীবন তার

তিনি কী ভাবেন!
ক্রমশ এলোমেলো হয়ে যাচ্ছে
পরিচিত সব সুখের গল্প!

1 মন্তব্যসমূহ

  1. "আটপৌরে জীবনে নারীদের
    গল্পের আসর
    দু' দিনের ব্যবধানে বেড়ে যায় পেঁয়াজের দাম"
    মানুষের জীবনের অমানিশা কবি দেখেন কি এক বিষ্ময় মননে

    "বাবাকে দেখেছি স্বাভাবিক
    কিছুটা কৌতূহল তাঁর স্বভাবজাত বটে!
    প্রখর রোদে দুপুর, থমথমে এ পাড়া
    গলির মুখে অদ্ভুত ভয়সংগীত"
    বাবার মাধ্যমে কবি নিজেকেও সঞ্চারিত করেন।

    খুবই ভালো লাগলো। কবিতায় অহেতুক কথা না থাকায় আরও সুন্দর, সাবলিল হয়েছে।

    উত্তরমুছুন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন